Blog

আইফোনের দাম কেন এত বেশী?

স্মার্টফোন আমাদের সকলেরই নিকট নিত্য দিনের সঙি। এই আর্টিকেলটি আপনি অবশ্যই কোন না কোন ব্রান্ডের স্মার্টফোন ব্যবহার করে পড়ছেন আর যদি কম্পিউটারের সাহায্যে পড়েন তাহলে আপনার কাছে কোন না কোন ব্রান্ডের স্মার্টফোন রয়েছে। আপনার এই স্মার্টফোনটির দাম কত টাকা? গড়ে ধরে নিলাম আপনার স্মার্টফোনটির দাম ২৫ হাজার টাকা। এই বাজেটে মোটেমুটি ভালো চিপসেট/ ক্যামেরা/ ব্যাটারি ইত্যাদি সমৃদ্ধ ফোন কিনতে পারা যায় তাই না? আরো ভালো মানের এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন কিনতে না হয় ৫০-৮০ হাজার টাকা লাগবে!! কিন্তু এই বাজেটে নতুন আইফোন কেনা একেবারে অসম্ভব। এখন ১ লাখ টাকারও বেশী খরচ পড়ে আইফোনের লেটেস্ট ভার্সনের ফোনটি কিনতে। Pro Max কিনতেতো আরো বেশি খরচ পড়বে।

আরো পড়ুন

  1. অফিসিয়াল ও আন অফিসিয়াল ফোন চেক করার নিয়ম
  2. স্মার্টফোন কেনার আগে যে বিষয়গুলোর দিকে খেয়াল রাখা উচিত

কিন্তু, কেন এত বেশী দাম? প্রযুক্তির যেখানে এত উন্নায়ন। অনেক কম দামে যেখানে আমরা ভালো প্রযুক্তি জিনিসপত্র ব্যবহার করছি সেখানে আইফোনের দাম কেন এত বেশি? আইফোনের দাম না কমে দিনে দিনে এর দাম আকাশ ছোঁয়া হচ্ছে।

আমার মতোন হয়ত আপনাদেরও কাছে একই প্রশ্ন ছিল যে আইফোনের দাম কেন এত বেশি। তো চলুন এর কিছু সম্ভাব্য কারণগুলো জেনে নেই আমরা।

আইফোনের দাম বেশী হওয়ার কারণ

বিভিন্ন তথ্য সূত্র এবং আমার নিজস্ব মতামত দিয়ে আইফোনের দাম বেশী হওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করছি।

নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম

আপনার সকলেই জানেন Apple এর স্মার্টফোন/ ল্যাপটপে যে অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয় তা হলো IOS। এটি অ্যাপেলের নিজস্ব তৈরিকৃত একটি অপারেটিং সিস্টেম। তো আইফোনের IOS ব্যবহার করা হয়। কিন্তু আইফোন বাদে অন্য সকল ফোনে Android অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়। অন্য সকল কোম্পানি কিন্তু চাইলেই Android Os ব্যবহার করার সুযোগ পাচ্ছে কিন্তু IOS ব্যবহার করার সুযোগ পাচ্ছে না। এর কারণ হলো Android Os টি হলো একটি ওপেন সোর্স অপারেটিং সিস্টেম। যেটকে যে কেউ ব্যবহার করতে পারবে। এবং এর জন্য কারো পারমিশন লাগবে না। আর IOS ওপেন সোর্স না হওয়ার এটিকে কেউ ব্যবহার করতে পারবে না। আর যদি ব্যবহার করতে চায় তবে কোম্পানির পারমিশন লাগবে এবং লাগবে IOS এর সোর্স ফাইল। তো যাই হোক যেহেতু অ্যাপেলের প্রোডাক্ট এই ওস ব্যবহার করা হয় তাই এটির রেগুলার আপডেট, বাগ ফিক্স ইত্যাদি কাজে কোম্পানিকে কাজ করতে হবে তাই না। আর এর জন্য তো অর্থের প্রয়োজন। এই অর্থ কোথা থেকে জোগার করবে তারা? এই অর্থটা তারা প্রত্যক আইফোনের সাথে যুক্ত করে দাম নির্ধারণ করে থাকে।

ব্রান্ড ভ্যালু

ব্রান্ড ভ্যালু কি তা আপনার সকলেরই জানেন। ঠিক তেমনি আইফোনের একটি ভালো ব্রান্ড ভ্যালু আছে। যখন আপনি আইফোন ব্যবহার করেন তখন আপনি অন্যর কাছে ফোনটির মাধ্যমে একটু শো অফ করবেন। শো অফ করবেন কিন্তু অ্যাপেল কোম্পানিকে টাকা দিবেন না তা কি হয়? তো অ্যাপলো তাদের ব্রান্ড ভ্যালুকে কাজে লাগায় এবং আইফোনের আরো অতিরিক্ত কিছু দাম সংযুক্ত করে।

নতুন প্রযুক্তি

আইফোন সবসময় চেস্টা করব তাদের স্মার্টফোনে নতুন কোন প্রযুক্তি সংযুক্ত করার। এর জন্য আইফোনের আলাদা একটা টিম রয়েছে যারা এই নিয়ে গবেষনা করে। এর জন্য প্রয়োজন হয় অর্থে। আর এই অর্থ কোথা থেকে আছে তা হয়তো আপনি বুঝতে পেরেছে।

মার্কেটিং

যেকোন প্রোডাক্ট জনসাধারণের নিকট পৌছে দেওয়ার জন্য মার্কেটিং গুরুত্বপূর্ণ একটি ফ্যাক্টর। আর অ্যাপেল কোম্পানি অবশ্যই এই কাজে বিপুল পরিমাণ টাকা খরচ করে।

এই সকল কারণগুলোর কারণে একটি আইফোনের দাম এত আকাশ ছোঁয়া বলে মনে করা হয়। অনেক টেক এক্সপার্ট এই কারণগুলোকে আইফোনের দাম বেশী হওয়ার কারণ হিসাবে ধরছেন।

Related Articles

Check Also
Close
Back to top button